Wednesday, July 17, 2024
প্রচ্ছদশিক্ষাশিক্ষাঙ্গনরাজধানীতে বঙ্গবন্ধু স্কয়ার তৈরীর উদ্যোগ নেয়ার আহবান ইবি ভাইস চ্যান্সেলরের

রাজধানীতে বঙ্গবন্ধু স্কয়ার তৈরীর উদ্যোগ নেয়ার আহবান ইবি ভাইস চ্যান্সেলরের

Published on

মোহাম্মদ তামজীদুল হক ফাহিম, ইবি প্রতিনিধি :- বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি সংরক্ষণে রাজধানী ঢাকাতে বঙ্গবন্ধু স্কয়ার তৈরীর উদ্যোগ নেয়ার আহবান ইবি উপাচার্যের। আজ (২১ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টায় বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে জাতীয় শোকদিবস এবং গ্রেনেড হামলা দিবস ২০১৯ উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ড. রাশিদ আসকারী এসব কথা বলেন।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী) বলেছেন, ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ তাঁর স্বপরিবারের হত্যাকান্ড আন্তর্জাতিক এবং দেশীয় গভীর ষড়যন্ত্র। ষড়যন্ত্রকারীরা বুঝতে পেরেছিল যে, জীবিত মুজিবের চেয়ে মৃত মুজিব হয়ে উঠবেন অধিক শক্তিশালী। এজন্য ১৫ আগস্টে যাঁরা নিহত হয়েছেন তাঁদের সবাইকে ঢাকা বনানী কবর স্থানে সমাহিত করা হলেও জাতির পিতার লাশটি প্রান্তিক জনপদে তাঁর গ্রামে সমাহিত করা হয়েছিল। যাতে করে পৃথিবীর মানুষ আবেগ প্রকাশের সুযোগ না পায়। পাশাপাশি সানগ্লাস জেনারেল যিনি নিহত হন চিটাগংএ, তাকে জনগনের প্রশংসা কুড়ানোর জন্য ওখান থেকে তার দেহাবশেষ নিয়ে এসে রাজধানীতে স্থানান্তরিত করা হয়।

তবে তাতে কোন লাভ হয়নি। একটি প্রান্তিক জনপদে লুকিয়ে দাফন করার পরেও সেই মুজিব আজ অতুলনীয় শক্তির উৎস হয়ে দাঁড়িয়েছেন। জাতির পিতার রক্ত এবং রাজনীতির উত্তরাধিকারী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহবান জানিয়ে ড. রাশিদ আসকারী বলেন, জাতির পিতার দেহ সমাহিত হয়েছে টুঙ্গিপাড়ায় তাঁর প্রিয় গ্রামে। তাঁর স্মৃতি সংরক্ষণের জন্য ঢাকাতে একটা বঙ্গবন্ধু স্কয়ার প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে। যেটি বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে হবে এবং সেখানে তাঁর স্মৃতি সংরক্ষণ করে রাখা হবে। যাতে করে সারা পৃথিবীর মানুষ ঢাকাতে নেমে বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে এসে তাঁর পূর্ণ স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর সুযোগ পায়। আর এটির প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে এজন্যই যে, বঙ্গবন্ধু আজ বাংলাদেশ এবং বাঙালি জাতির সম্পদ নয়, বঙ্গবন্ধু এশিয়া, দক্ষিণ এশিয়াসহ সারা পৃথিবীর মুক্তিকামী মানুষের কাছে মহা-সম্পদে পরিণত হয়েছে। তিনি বলেন, ১৫ আগস্ট এবং ২১ আগস্ট একইসূত্রে গাঁথা। ষড়যন্ত্রকারীরা এখনো ষড়যন্ত্র করেই চলেছে। এজন্য স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তিকে সব সময় এক এবং ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে এ ষড়যন্ত্র মোকাবেলার জন্য।

জাতীয় শোকদিবস ও গ্রেনেড হামলা দিবস ২০১৯ উদ্যাপন কমিটির আহবায়ক ও পরিবহন প্রশাসক প্রফেসর ড. মোঃ রেজওয়ানুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান এবং ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা। প্রধান আলোচক ছিলেন ইবি বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রফেসর প্রফেসর শামসুজ্জামান খান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার (ভার:) এস এম আব্দুল লতিফ।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন একজন বিচক্ষণ রাজনীতিবীদ। এদেশের মানুষ কি চায়, তা অনুভব করেই বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ প্রদান করেছিলেন। তিনি বলেন, স্বাধীনতা বিরোধীকারীরা ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারের হত্যা করেছিল। কিন্ত বাঙালির আর্র্শিবাদ হিসেবে সেদিন বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে যখনি বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্তির পথে এগিয়ে চলেছেন ঠিক তখনি একের পর এক জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার জন্য আবারও ষড়যন্ত্রকারীরা জেগে উঠেছে। তাই এ ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে আমাদের এক ও ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

অপর বিশেষ অতিথি ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, পরিকল্পিত ১৫ আগস্টের হত্যাকান্ডের সাথে অন্য কোন রাষ্ট্র নায়কের হত্যা এক করা যাবে না। আন্তর্জাতিক এবং দেশীয় চক্রান্তে বঙ্গবন্ধুসহ তাঁর স্বপরিবারের জীবন দিতে হয়েছে। তিনি বলেন, অবিলম্বে একটি শক্তিশালী বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠনের মাধ্যমে এ হত্যাকান্ডের সাথে আন্তর্জাতিক এবং দেশীয় পর্যায়ে যারা জড়িত ছিল তাদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনতে হবে। তিনি বলেন, শুধু ২১ আগস্ট নয়, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ১৯ বার হত্যার চেষ্টা করে ষড়যন্ত্রকারীরা। .

প্রধান আলোচক প্রফেসর শামসুজ্জামান খান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনী নিয়ে আলোচনাকালে বলেন, বঙ্গবন্ধু তাঁর ৫৪ বছরের জীবনে ১৪ বছর জেলে কাটিয়েছেন। তিনি বলেন, শত ব্যস্ততার মাঝেও বঙ্গবন্ধু ৫টি বই লিখে গেছেন যা ইতোমধ্যে ২টি প্রকাশিত হয়েছে এবং ১টি প্রকাশনার শেষ পর্যায়ে। তিনি ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা আগামী দিনে এ রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণ করবে। তাই বঙ্গবন্ধুকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে তোমাদেরকে বই পড়ার মাধ্যমে জ্ঞানার্জন করতে হবে।

বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষক ড. মোঃ আবু হেনা মোস্তফা জামালের পরিচালনায় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ কামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আলমঙ্গীর হোসেন ভূঁইয়া, ইবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের পক্ষ থেকে প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবুর রহমান, শাপলা ফোরামের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, সহায়ক কর্মচারী সমিতির সভাপতি উকিল উদ্দিন এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি এস এম রবিউল ইসলাম পলাশ ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ রাকিবুল ইসলাম রাকিব।

সর্বশেষ

কুষ্টিয়ায় আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমর্থকদের সংঘর্ষে আহত ৭

কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনাল খেলা নিয়ে বাগ্‌বিতণ্ডার পর সংঘর্ষে জড়িয়ে অন্তত সাতজন...

কুষ্টিয়ায় শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি, বরখাস্ত প্রধান শিক্ষককে পুলিশে সোপর্দ

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে পঞ্চম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির মামলায় বরখাস্ত প্রধান শিক্ষককে বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর)...

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একটি শিশুসহ দু’জনের মৃত্যু হয়েছে।   বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে...

পাসপোর্ট সংশোধনে সরকারের নতুন নির্দেশনা

এনআইডির তথ্য অনুযায়ী পাসপোর্ট রি-ইস্যুর নির্দেশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) দেওয়া তথ্য অনুযায়ী পাসপোর্ট...

আরও পড়ুন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পাইলিংয়ের সময় ক্রেন ছিড়ে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) নির্মাণাধীন দ্বিতীয় প্রশাসন ভবনের পাশে পাইলিংয়ের সময় মাথার আঘাত পেয়ে দুর্ঘটনাবশত...

বর্ণাঢ্য আয়োজনে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে ৪৪তম ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) দিবস উদযাপন করা হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে...

ছাত্রীর সঙ্গে অশ্লীল প্রেমালাপ ফাঁস: ইবি শিক্ষককে শোকজ | থানায় জিডি

ছাত্রীর সঙ্গে আপত্তিকর প্রেমালাপের অভিযোগের দায়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমানকে...