Thursday, July 18, 2024
প্রচ্ছদকুষ্টিয়ামিরপুরমিরপুরের ব্যাধ সম্প্রদায় সাংস্কৃতির কারখানা

মিরপুরের ব্যাধ সম্প্রদায় সাংস্কৃতির কারখানা

Published on

কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলা পরিষদ’র অনতিদুরে রেলওয়ে ষ্টেশন সংলগ্ন আদিবাসী ‘ব্যাধ সম্প্রদায়’ প্রতিভাগুনে এখন সাংস্কৃতির কারখানায় পরিণত হয়েছে। এলাকাবাসীর কাছে ব্যাধ ‘কোলপাড়া’ হিসাবে ব্যাপক পরিচিত।

যাযাবর জীবন-যাপনে অভ্যস্ত মিরপুর উপজেলায় এ সম্প্রদায়ের আবির্ভাব ঘটে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে দেশ স্বাধীন হবার পর পরই ১৯৭২ সালের দিকে। মূলতঃ পাখি শিকার এবং বেত ও মোলা বাঁশ দিয়ে তৈরী বিভিন্ন জিনিস-পত্রাদী তৈরী করে বাজারজাত করা এই ব্যাধ সম্প্রদায়ের মূল পেশা হলেও প্রায় ৩ দশক ধরে সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বিভিন্ন শাখার সাথে এই সম্প্রদায়ের বেশিরভাগ সদস্য নিজেদের সম্পৃক্ত করে রীতিমত সাংস্কৃতির কারখানায় পরিণত করেছে। সাংস্কৃতির ক্ষেত্রে জন্মগতভাবে বেদ সম্প্রদায়ের অধিকাংশ সদস্য অপার প্রতিভাসম্পন্ন । তা সত্বেও একসময় মিরপুর উপজেলার নের্তৃস্থানীয় ব্যাক্তিবর্গ ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা এ সম্প্রদায়কে নিচু জাতের মানুষ অভিহিত করে তাদেরকে প্রতিভা বিকাশের সুযোগ থেকে বঞ্চিত করে রাখতো। অথচ এখন আদি বাসী বেদ সম্প্রদায় মিরপুর উপজেলার সাংস্কৃতিকে বহুলাংশে সমৃদ্ধ করে নিজ এলাকার গন্ডী পেরিয়ে দেশব্যাপি মিরপুর উপজেলার হয়ে প্রতিনিধিত্ব করছে। প্রতিমিরপুরের বেদ সম্প্রদায়কে মিরপুরের এই বেদ সম্প্রদায়ের বাউল ভজন ক্ষ্যাপা, তবলা বাদক সুমন এবং সর্বশেষ শ্রাবণ কুমার জুয়েল দেশের সঙ্গিত জগতে ইতিমধ্যেই তারকাখ্যাতি অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। এরমধ্যে সুমন কুমার ব্যাদ বর্তমানে বাংলাদেশ বেতার ঢাকায় তবলা বাদক হিসাবে কর্মরত, কন্ঠশিল্পী বাউল ভজন খ্যাপা ২০১৩ সালে বেসরকারী এনটিভির সঙ্গিত প্রতিভা অন্মেষন মূলক প্রতিযোগীতা ক্লোজআপ-০১ এ সেরা ৩০ এবং শ্রাবণ কুমার জুয়েল প্রথমবারের মত এসএ টিভিতে অনুষ্ঠিতব্য সঙ্গিত প্রতিভা অন্বেষন মূলক “বাংলাদেশী আইডল” প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহন করা কয়েক লক্ষ প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে শুধুমাত্র এস এম এস ভোট কম পাওয়ায় সেরা ১২ তে এসে থেমে যায় জুয়েলের জয়রথ। উল্লেখ্য জুয়েল যাত্রাপালা দলের খ্যাতিমান অভিনেত্রী পুতুলের পুত্র।

এ ছাড়াও এ ব্যাদ সম্প্রদায়ের মধ্যে কমলা রানী, রুপা,বেদানা, শাবানা, পিংকী, আলো, ময়না, মালা, নাগিনী, রিতা, কনক চাঁপা,পাতা, চন্দ্রা,শুকতারা, রুপতারা ও জবা দেশের বিভিন্ন যাত্রাপালায় অভিনয় করে তাদের প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে চলেছেন। এরমধ্যে কন্ঠশিল্পী বাউল ভজন খ্যাপার মা কমলা রানী (৫৫) একই সাথে যাত্রাপালায় নৃত্যশিল্পী, নায়িকা ও গায়িকা চরিত্রে অভিনয় করে ব্যাপক খ্যাতি অর্জন করেন। ভজনের পিতা ভক্তচন্দ্র ব্যাদও যাত্রাদলের বিখ্যাত যন্ত্রবাদক। এলাকার সঙ্গিত বোদ্ধারা মনে করেন যদি ভজনের মা কমলা রানী যথাযথ পৃষ্ঠপোষকতা পেত তাহলে তাঁর কন্ঠে যে জাদু আছে তা দিয়ে দেশের লোক সঙ্গিতের দিকপাল মমতাজ‘র মতো আরেকজন হিসাবে আবির্ভূত হতে পারতো।

সর্বশেষ

কুষ্টিয়ায় আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমর্থকদের সংঘর্ষে আহত ৭

কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনাল খেলা নিয়ে বাগ্‌বিতণ্ডার পর সংঘর্ষে জড়িয়ে অন্তত সাতজন...

কুষ্টিয়ায় শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি, বরখাস্ত প্রধান শিক্ষককে পুলিশে সোপর্দ

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে পঞ্চম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির মামলায় বরখাস্ত প্রধান শিক্ষককে বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর)...

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একটি শিশুসহ দু’জনের মৃত্যু হয়েছে।   বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে...

পাসপোর্ট সংশোধনে সরকারের নতুন নির্দেশনা

এনআইডির তথ্য অনুযায়ী পাসপোর্ট রি-ইস্যুর নির্দেশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) দেওয়া তথ্য অনুযায়ী পাসপোর্ট...

আরও পড়ুন

টিউশনি করে গোল্ডেন এ প্লাস পেলেন কুষ্টিয়ার জমজ দুই বোন

সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম বাবা দীর্ঘদিন ধরে মানসিক রোগী। টিউশনি করে কোন রকমে সংসার চালাচ্ছেন...

ভারতীয় সিরিয়াল ‘সিআইডি’ দেখে কুষ্টিয়ার ফুল ব্যবসায়ী আবু তৈয়ব হত্যার পরিকল্পনা

কুষ্টিয়ার মিরপুরে ফুল ব্যবসায়ী আবু তৈয়ব (৫৪) হত্যার পর দ্রুততার সাথে রহস্য উদঘাটন করেছে...

কুষ্টিয়ার মিরপুরে র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ২

কুষ্টিয়ার মিরপুরের কাতলামারী বাজার থেকে ইয়াবাসহ টুটুল হোসেন (২২) ও তৌফিক রানা সিয়াম (২০)...