Monday, June 24, 2024
প্রচ্ছদকুষ্টিয়াঅপরাধকুষ্টিয়ায় সরকারি জায়গায় পৌর কাউন্সিলরের বাজার

কুষ্টিয়ায় সরকারি জায়গায় পৌর কাউন্সিলরের বাজার

Published on

কুষ্টিয়ায় সড়ক বিভাগের জায়গা দখল করে বাজার বসিয়েছেন এক পৌর কাউন্সিলর। সরকারি জায়গার ওপর বসানো ওই বাজারের নেই কোনো অনুমোদন। পৌরসভার ইজারার তালিকায়ও নাম নেই পৌর কাউন্সিলরের ওই বাজারের। নিজ ওয়ার্ডের চৌড়হাস ফুলতলা এলাকায় অবৈধভাবে বাজারটি গড়ে তুলেছেন শহর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও কুষ্টিয়া পৌরসভার কাউন্সিলর মীর রেজাউল ইসলাম বাবু। তিনি কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর। শুধু অবৈধ বাজার নয়, অল্পদিনে ক্ষমতাসীন দলের নেতা হয়ে উঠা এই কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে এলাকায় রয়েছে নানা অপকর্মের অভিযোগ।

পৌরসভার লাইসেন্স শাখা থেকে জানা যায়, কুষ্টিয়া পৌর এলাকায় তাদের ইজারাকৃত ১৮টি হাট-বাজার রয়েছে। যার মধ্যে চলতি বছর ১৩টি হাট-বাজার টেন্ডারের মাধ্যমে ইজার দেয়া আছে। বাকি ৫টিতে এখনও টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়নি। পৌরসভার লাইসেন্স শাখার ১৮ হাট-বাজারের তালিকায় কাউন্সিলর রেজাউল ইসলামের বসানো বাজারের নাম খুঁজে পাওয়া যায়নি। লাইসেন্স শাখা থেকে জানানো হয় বাজারটি অবৈধ। কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম বলেন, কাউন্সিলর রেজাউল ইসলামের মার্কেটটির অনুমোদন নেয়া আছে এবং নিয়মিত পৌর কর পরিশোধ করেন। তবে মার্কেটের সামনের বাজারটির কোনো অনুমোদন নেই। উক্ত বাজারটি পৌরসভার ইজারাকৃত না। বাজারটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের জায়গার ওপর অবস্থিত। কোনো ব্যবস্থা নিতে হলে সড়ক বিভাগকে নিতে হবে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, শহরের চৌড়হাস ফুলতলায় পৌর কাউন্সিলর রেজাউল ইসলামের বাড়ি ও মার্কেটের সামনে কুষ্টিয়া-ঝিনাইদহ মহাসড়ক। ওই মহাসড়ক সংলগ্ন নিজের মার্কেটের সামনে সড়ক বিভাগের জায়গায় অবৈধভাবে গড়ে তুলেছেন কাঁচা বাজার। বাজারে বসানো হয়েছে বেশ কয়েকটি মাংসের দোকান। মুরগি ও মাছের দোকানসহ রয়েছে সব ধরনের সবজির দোকান। বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, বাজারটি বসিয়েছেন স্থানীয় কাউন্সিলর রেজাউল ইসলাম। তিনি নিজেই বাজারের দোকানিদের কাছ থেকে ভাড়া তোলেন। ব্যস্ততম ওই এলাকায় রাস্তার সঙ্গে বাজার বসানোয় সাধারণ মানুষ ও পথচারীদের প্রতিনিয়ত দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। শুধু পথচারী না, অবৈধ ওই বাজারের কারণে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে আশপাশের বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীরা। তবে কেউ টু-শব্দ করতে সাহস পান না। কাউন্সিলর রেজাউল ইসলাম এলাকায় মাছ বাবু নামে পরিচিত। মাছের ব্যবসার সুবাদেই তিনি মাছ বাবু নামে পরিচিত হয়ে উঠেন। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এলে হঠাৎ করে আওয়ামী লীগ নেতা বনে যান তিনি। অল্পদিনের মধ্যে শহর আওয়ামী লীগের পদও বাগিয়ে নেন। নেতাদের ম্যানেজ করে কাউন্সিলর হন।

পৌর কাউন্সিলর রেজাউল ইসলাম বলেন, গরিব মানুষের জন্য বাজারটি করেছি। অস্থায়ীভাবে বাজারটি বসানো হয়েছে। পৌরসভার কোনো অনুমোদন নেই স্বীকার করে কাউন্সিলর বলেন, যে কোনো সময় বাজারটি ভেঙে নেয়া যাবে।

সূত্র- যুগান্তর

সর্বশেষ

কুষ্টিয়ায় আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমর্থকদের সংঘর্ষে আহত ৭

কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনাল খেলা নিয়ে বাগ্‌বিতণ্ডার পর সংঘর্ষে জড়িয়ে অন্তত সাতজন...

কুষ্টিয়ায় শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি, বরখাস্ত প্রধান শিক্ষককে পুলিশে সোপর্দ

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে পঞ্চম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির মামলায় বরখাস্ত প্রধান শিক্ষককে বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর)...

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একটি শিশুসহ দু’জনের মৃত্যু হয়েছে।   বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে...

পাসপোর্ট সংশোধনে সরকারের নতুন নির্দেশনা

এনআইডির তথ্য অনুযায়ী পাসপোর্ট রি-ইস্যুর নির্দেশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) দেওয়া তথ্য অনুযায়ী পাসপোর্ট...

আরও পড়ুন

কুষ্টিয়ায় আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমর্থকদের সংঘর্ষে আহত ৭

কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনাল খেলা নিয়ে বাগ্‌বিতণ্ডার পর সংঘর্ষে জড়িয়ে অন্তত সাতজন...

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একটি শিশুসহ দু’জনের মৃত্যু হয়েছে।   বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে...

কুষ্টিয়ায় স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে হোটেলে, কলেজছাত্রীর মৃত্যুর পর যুবক আটক

কুষ্টিয়ায় একটি আবাসিক হোটেলে শয্যা বিশ্বাস (১৮) নামে এক কলেজছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায়...