Thursday, December 8, 2022
প্রচ্ছদকুষ্টিয়াকুষ্টিয়া সদরকুষ্টিয়ায় লিবিয়া প্রবাসী জনি মন্ডল অপহরণের একদিন পর উদ্ধার

কুষ্টিয়ায় লিবিয়া প্রবাসী জনি মন্ডল অপহরণের একদিন পর উদ্ধার

Published on

কুষ্টিয়া ইবি থানার পাটিকাবাড়ী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড মাজিলা গ্রামের মৎস্য ব্যবসায়ী সইফল মন্ডলের বড় ছেলে লিবিয়া ফেরত জনি মন্ডল (২৬) গত রবিবার রাতে অপহরণ হয়। অপহরণের একদিন পরেই কুষ্টিয়া জেলা ডিবি পুলিশ ও ইবি থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ৯টায় চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা মহাসড়কের ছত্রপাড়া মসজিদের পাশে থেকে হাত পা ও মুখ বাধা অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করেছে।

উদ্ধারের পর পুলিশ তাৎক্ষণিক অপহৃত জনি মণ্ডলকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসেন। এই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ তার পরিবারের সদস্য সহ ৫ জনকে আটক করেছে।

এ ব্যাপারে ইবি থানার অফিসার ইনচার্জ রতন শেখের সাথে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান, রবিবার রাতে পাটিকাবাড়ি মাজিলা গ্রামের লিবিয়া প্রবাসী জনি মণ্ডল (২৬)কে ৩ জন মুখ বেধে ঘর থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। এই খবর পেয়ে কুষ্টিয়া জেলা ডিবি পুলিশের সাথে যৌথ অভিযান চালিয়ে ২৩ ঘণ্টার মধ্যে অপহৃত জনি মণ্ডলকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

অপহরণের পর আলমডাঙ্গা সড়কের ছত্রাপাড়া মসজিদের নিকট হাত পা ও মুখ বাধা অচেতন অবস্থায় জনি মণ্ডলকে উদ্ধার করা হয়। এই ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

প্রবাসী জনির স্ত্রী মুক্তা খাতুন বলেন, আমার স্বামী জনি ৪বছর লিবিয়া ছিলো। গত ছয়মাস আগে দেশে এসেছে। আবার লিবিয়া যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। গত রবিবার বিশ্বকাপ ফুলবল খেলার রাতে আনুমানিক ১০টার দিকে আমার স্বামী বাইরে থেকে ঘরে আসলে আমার ৬ বছরের কন্যাসহ আমরা ঘরে ঘুমানোর প্রস্তুতিকালে বাইরে থেকে মন্ডল মন্ডল করে ডাকার শব্দ শুনতে পাই এবং তারা আমাদের দরজায় ধাক্কা দিয়ে জনির নাম ধরে ডাক দিলে আমি তাদের জিজ্ঞাসা করি আপনারা কোথা থেকে এসেছেন আর কি দরকারে এসেছেন? তখন তারা বলে দরজা খোলেন। জনির সাথে কথা আছে? আমি দরজা খুলে দিলে তিনজন লোক মুখবাঁধা অবস্থায় বলে জনির সাথে আমাদের দরকার আছে? তাদের পরিচয় জানতে চাইলে তারা পরিচয় না বলে জনিকে বাইরে আসতে বলে? ঠিক তখন আমাদের পাশের রুম থেকে আমার শ্বাশুড়ী দরজা খোলার জন্য ডাকতে থাকলে আমি তার দরজায় বাইরে থেকে আটকানো শিকল খুলে দিয়ে ফিরে দেখি ওই মুখবাঁধা তিনজন আমার স্বামীকে নিয়ে চলে গেলো?

আমি তখন তাদের পিছনে গিয়ে আর খুঁজে না পেয়ে রাস্তায় গিয়ে আশে পাশের লোকজনকে ডাকতে থাকি? ওই রাতেই এলাকাবাসীর সংবাদের ভিত্তিতে স্থানীয় পাটিকাবাড়ী ক্যাম্পের পুলিশ এসে মাঠঘাঠ তন্নতন্ন করে খুঁজে পাওয়া যায়নি ? পরে পুলিশ তাৎক্ষণিক অপহরণের ঘটনায় সন্দেহমূলক ভাবে চরপাড়া গ্রামের জহুরুল, গোপালপুর গ্রামের শাফি ও কালিজিয়া গ্রামের ছানোয়ার নামক তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে।

অপহৃত জনির পিতা সইফল মন্ডল বলেন, রাত দশটার দিকে আমার ছেলে জনিকে ধরে নিয়ে গেছে এমন সংবাদ শুনে আমার মাছের পুকুর থেকে সঙ্গে সঙ্গে ছুটে এসে খোঁজাখুজি করতে থাকি? কেন বা কি কারনে জনি অপহরণ হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তার পিতা সইফল মন্ডল বলেন, ওইডা আমি বলতে পারবনা। আজ রাত যাবে, কাল রাত যাবে, তারপর বলতে পারবো? তবে আমার বিশ্বাস আমার ছেলেকে কেউ মেরে ফেলবেনা?

তবে এই অপহরণের ঘটনাটি রহস্যজনক বলেই দাবি করেছে এলাকাবাসী।

সর্বশেষ

কুষ্টিয়ায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরে গেল ২ প্রাণ

কুষ্টিয়া ভেড়ামারা উপজেলায় ট্রাকের চাপায় মোটরসাইকেল চালকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। শনিবার (৩ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে...

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পাইলিংয়ের সময় ক্রেন ছিড়ে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) নির্মাণাধীন দ্বিতীয় প্রশাসন ভবনের পাশে পাইলিংয়ের সময় মাথার আঘাত পেয়ে দুর্ঘটনাবশত...

এসএসসি পরীক্ষায় যশোর বোর্ডে প্রথম হলেন কুষ্টিয়ার শিক্ষার্থী নাজিফা

এ বছর মাধ্যমিক পরীক্ষায় যশোর বোর্ডে প্রথম হয়েছে কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাজিফা...

টিউশনি করে গোল্ডেন এ প্লাস পেলেন কুষ্টিয়ার জমজ দুই বোন

সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম বাবা দীর্ঘদিন ধরে মানসিক রোগী। টিউশনি করে কোন রকমে সংসার চালাচ্ছেন...

আরও পড়ুন

এসএসসি পরীক্ষায় যশোর বোর্ডে প্রথম হলেন কুষ্টিয়ার শিক্ষার্থী নাজিফা

এ বছর মাধ্যমিক পরীক্ষায় যশোর বোর্ডে প্রথম হয়েছে কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাজিফা...

হামলার বিচার না হলে আত্মহত্যার হুমকি ছাত্রলীগ নেতার

কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ হাফিজ চ্যালেঞ্জ গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছেন। রক্তাক্ত অবস্থায় তিনি...

কুষ্টিয়া করোনা আপডেট: আক্রান্ত হাজার ছাড়াল | নতুন শনাক্ত ৪৫ জন

কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে গত ২৪ ঘন্টায় কুষ্টিয়া জেলার ১২৮ টি রিপোর্ট...