Tuesday, December 6, 2022
প্রচ্ছদকুষ্টিয়াকুষ্টিয়া সদরকুষ্টিয়ায় চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যু, হাসপাতালে ভাঙচুর

কুষ্টিয়ায় চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যু, হাসপাতালে ভাঙচুর

Published on

রোগীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে রোগীর স্বজন, নার্স, পুলিশ ও ইন্টার্ন ডাক্তারদের বিশৃঙ্খলায় চরম ভোগান্তিতে সাধারণ রোগীরা ।

ঘটনার সূত্রপাত বেলা সোয়া দুইটার দিকে। ভর্তিকৃত রোগী বিনা চিকিৎসায় মারা যাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে নার্স, হাসপাতালেরই স্টাফ ও পুলিশদের রোগীর স্বজনদের ওপরে হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিশৃঙ্খলা।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বেলা ১১টার দিকে কুষ্টিয়া শহরের মিলপাড়া এলাকার বশির আহমেদ (৬০) শ্বাসকষ্ট নিয়ে মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি হন। বেলা দুইটার দিকে তিনি মারা যান। রোগীর কয়েকজন স্বজন অভিযোগ করেন, তাঁরা অক্সিজেন চেয়েও পাননি। এ জন্য তাঁদের রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ অভিযোগে রোগীর স্বজনেরা হাসপাতালের চিকিৎসকদের ওপর চড়াও হন।

ওয়ার্ডের প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হাসপাতালে আসার পর বিনা চিকিৎসায় মারা যায় ওই রোগী এমনই অভিযোগে স্বজনরা নার্সদের উপর চড়াও হয়। এক পর্যায়ে নার্স ও ডাক্তারদের দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ ডাক্তার নার্স ও রোগীর স্বজনরারা বাকবিতন্ডায় জরিয়ে পরে। এ সময় সেখানে উপস্থিত হন রাশেদ নামের এক পুলিশ সদস্য। কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই ওই পুলিশ সদস্য লাঠিচার্জ শুরু করেন রোগীর স্বজনদের উপর। এক পর্যায়ে পুলিশ ডাক্তার নার্স ও রোগীর স্বজনদের হৈ- হট্টগোলে চরম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয় সেখানে।

প্রত্যক্ষদর্শী রোগী ও রোগীর স্বজনরা জানায়, রোগীর স্বজনরা কান্নারত অবস্থায় রোগীর ফাইল ছুরে দিলে নার্স ও ডাক্তার চড়াও হয় । এ নিয়ে ডাক্তার নার্স ও রোগীর স্বজনদের তুমুলঝগড়া শুরু হলে সেখানে পুলিশই প্রথমে রোগীর স্বজনদের ওপর হামলা চালায়। এতে রোগীর স্বজনরাও পুলিশের সাথে সংঘর্ষে জরিয়ে পরে। এ সময় অন্যান্য রোগী ও স্বজনরা অতংকিত হয়ে পরে। পরে কুষ্টিয়া সদর থানা থেকে আরো পুলিশ সদস্যরা ঘটনা স্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
হাসপাতালের কর্রব্যরত পুলিশ সদস্যা রাশেদ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, খবর পেয়ে তিনি ছুটে যান ওয়ার্ডে। সেখানে গিয়ে তিনি রোগীর উত্তেজিত স্বজনদের বোঝানোর চেষ্টা করলে স্বজনরা তার উপর চড়াও হয়। এক পর্যায়ে তার জামা টেনে ধরে এবং অকাথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। পরে সংবাদ পেয়ে সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এদিকে এই ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রভাবিত করতে চিকিৎসকরা হাসপাতালের বাহিরে এসে অবস্থান নিয়ে কর্মবিরতি পালন করতে থাকে। এ সময় জরুরী বিভাগে চিকিৎসক না থাকায় চিকিৎসা নিতে আসা রোগী নিয়ে চরম ভোগান্তিতে পরে স্বজনরা। এ ছাড়াও এর কিছু সময় পরে ওয়ার্ডে ৩ মহিলা ওয়ার্ডে মৃত্যু হয় পোড়াদহ বাগডাঙা গ্রামের ইয়াকুব শেখের স্ত্রী জহুরা খাতুন (৭৫)। চিকিৎসক না থাকায় মৃত সনাক্ত করার মত কোন ডাক্তার হাসপাতালে না থাকায় দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করে পরে লাশ নিয়ে চলে যায় স্বজনরা। এছাড়াও সন্ধ্যায় হাসপাতালের স্ক্যানুওয়ার্ডে মিরপুর উপজেলার হাজরাহাটি গ্রামের হাজ্জাদের ৩ দিন বয়সের এক নবজাতক শিশুর মৃত্যু হয় ।

রাতে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ( আর এম ও) ডা: তাপস কুমার সরকার জানান, ঘটনার পর পরই চিকিৎসকরা কিছু সময়ের জন্য কর্মবিরতিতে গিয়ে ছিল। এখন পরিস্থিত স্বাভাবিক। আর কোন সমস্যা নেই।

সর্বশেষ

কুষ্টিয়ায় মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরে গেল ২ প্রাণ

কুষ্টিয়া ভেড়ামারা উপজেলায় ট্রাকের চাপায় মোটরসাইকেল চালকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। শনিবার (৩ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে...

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পাইলিংয়ের সময় ক্রেন ছিড়ে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) নির্মাণাধীন দ্বিতীয় প্রশাসন ভবনের পাশে পাইলিংয়ের সময় মাথার আঘাত পেয়ে দুর্ঘটনাবশত...

এসএসসি পরীক্ষায় যশোর বোর্ডে প্রথম হলেন কুষ্টিয়ার শিক্ষার্থী নাজিফা

এ বছর মাধ্যমিক পরীক্ষায় যশোর বোর্ডে প্রথম হয়েছে কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাজিফা...

টিউশনি করে গোল্ডেন এ প্লাস পেলেন কুষ্টিয়ার জমজ দুই বোন

সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম বাবা দীর্ঘদিন ধরে মানসিক রোগী। টিউশনি করে কোন রকমে সংসার চালাচ্ছেন...

আরও পড়ুন

এসএসসি পরীক্ষায় যশোর বোর্ডে প্রথম হলেন কুষ্টিয়ার শিক্ষার্থী নাজিফা

এ বছর মাধ্যমিক পরীক্ষায় যশোর বোর্ডে প্রথম হয়েছে কুষ্টিয়া সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাজিফা...

হামলার বিচার না হলে আত্মহত্যার হুমকি ছাত্রলীগ নেতার

কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ হাফিজ চ্যালেঞ্জ গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছেন। রক্তাক্ত অবস্থায় তিনি...

কুষ্টিয়া করোনা আপডেট: আক্রান্ত হাজার ছাড়াল | নতুন শনাক্ত ৪৫ জন

কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে গত ২৪ ঘন্টায় কুষ্টিয়া জেলার ১২৮ টি রিপোর্ট...