Tuesday, July 23, 2024
প্রচ্ছদকুষ্টিয়াখোকসাকি কারণে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন খোকসার কানু মাস্টার !

কি কারণে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন খোকসার কানু মাস্টার !

Published on

ধোকড়াকোল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন শিক্ষক কানু কুমার আজ নিজের বাড়িতে গলায় ফাঁস নিয়ে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। এলাকার একজন ভালো শিক্ষক হিসেবে তাঁর সুনাম ছিলো সবর্ত্রই। প্রখর মেধাবী এই শিক্ষকের মৃত্যু কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না এলাকার মানুষ ও তাঁর ছাত্র-ছাত্রীরা।

পারিবারিকভাবে কোনো ঝামেলা না থাকলেও আসলে কি কারণে তিনি আত্মহননের মতো একটি নিকৃষ্ট কাজ করতে পারলেন- এমন প্রশ্ন সবার। আসলে তিনি কি কারণে আত্মহত্যা করলেন?

জানা গেছে, উপজেলার জয়ন্তীহাজরা ইউনিয়নের রাধানগর গ্রামের সমাজকর্মী নরেন বিশ্বাসের ছেলে কানু কুমার ওরফে কানু মাস্টার ২০১৩ সালে ধোকড়াকোল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক হিসাবে পাঠদান শুরু করেন।

বিদ্যালয়ে পাঠদান শুরু করার সাথে সাথে খুব অল্প কয়েক দিনের মধ্যে সবার প্রিয় শিক্ষক হয়ে উঠেন। তিনি ছিলেন সবার আদর্শ। তিনি ছাত্রদের খুব নিবিড়ভাবে পড়াশোনা করাতেন। যার ফলে খুব অল্প সময়ের মধ্যে তার নাম চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। দূর-দুরান্ত থেকে তার কাছে শিক্ষা গ্রহণের জন্য আসতো। সবাইকে তিনি অত্যন্ত উৎসাহ সহকারে পাঠদান করাতেন।

তিনি ছিলেন একজন প্রতিবাদী ও সাহসী শিক্ষক। তিনি সমাজের উন্নয়নমূলক কাজের সাথে জড়িত ছিল। নারীদের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন সংগঠনের সাথে কাজ করেছেন।

বিদ্যালয় তিনি একজন শিক্ষক হিসাবে শুধু ছিলেন না। তিনি ছিলেন সব ছাত্র-ছাত্রীর কাছে একজন আদর্শিক ব্যক্তি। সব শিক্ষকের নয়নের মনি। পাঠদানের পাশাপাশি বিদ্যালয়ের বিভিন্ন কাজে তিনি লিপ্ত ছিলেন। তিনি যে একজন খণ্ডকালীন শিক্ষক ছিলেন, তা তিনি মনে করতেন না। বিদ্যালয় ও ছাত্র ছাত্রীদেরকে তিনি তার পরিবার মনে করতেন।

তিনি সব সময় স্বপ্ন দেখতেন তার ছাত্র ছাত্রীরা যেন মানুষের মতো মানুষ হয়ে তার নাম উজ্জল করুক। তার সবচেয়ে সম্মানের জায়গা ছিল এইটা।

তার জন্য তিনি গরীর ছাত্র ছাত্রীদের বিনামূল্য শিক্ষা দিতেন। সবসময় তিনি বলতেন বড় হয়ে যেন তোমরা দেশের জন্য কিছু করো। দেশকে পৃথিবীর দরবারে মাথা উঁচু করার তোমরাই হাতিয়ার। তিনি বলতেন আমার শিক্ষা তোমরা দেশের মঙ্গলের কাজে ব্যবহার করো।

যে মানুষটির ছিলো এতো গুণ, যার ভাণ্ডারে ছিলো এত জ্ঞান; আর সেই কিনা আত্মহত্যা করলো? এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেলো তাঁর আত্মহত্যার মূল কারণ। তিনি কয়েকদিন ধরেই মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন। এলাকার কিছু স্বার্থান্বেষী মানুষ তার বিরুদ্ধে তারই এক শিক্ষকের মেয়ের সাথে অপবাদ রটায়। পরে অবশ্য সত্যটি বেরিয়ে আসে।

তার সরকারি চাকরি বয়স ছিলো আর কয়েকদিন। ইতোমধ্যেই তিনি অর্থ মন্ত্রণালয়ে চাকরির জন্য দিয়ে রেখেছিলেন মোটা অংকের টাকা। কিন্তু সেই চাকরিও অনিশ্চিত। স্কুলে ক্লাস নিয়ে আর টিউশনি করে পরিবারের ব্যয় সাংকুলান করতে পারছিলেন না। এসব বিষয়ের হতাশা তাকে ঘিরে ধরেছিল। যার জন্যই তার জীবনে নেমে এলো অন্ধকার। তার এই নির্মম পরিস্থিতির জন্য দ্বায়ী এই সমাজব্যাবস্থা।

সর্বশেষ

কুষ্টিয়ায় আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমর্থকদের সংঘর্ষে আহত ৭

কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনাল খেলা নিয়ে বাগ্‌বিতণ্ডার পর সংঘর্ষে জড়িয়ে অন্তত সাতজন...

কুষ্টিয়ায় শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি, বরখাস্ত প্রধান শিক্ষককে পুলিশে সোপর্দ

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে পঞ্চম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির মামলায় বরখাস্ত প্রধান শিক্ষককে বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর)...

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

কুষ্টিয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একটি শিশুসহ দু’জনের মৃত্যু হয়েছে।   বৃহস্পতিবার (১৫ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে...

পাসপোর্ট সংশোধনে সরকারের নতুন নির্দেশনা

এনআইডির তথ্য অনুযায়ী পাসপোর্ট রি-ইস্যুর নির্দেশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) দেওয়া তথ্য অনুযায়ী পাসপোর্ট...

আরও পড়ুন

কুষ্টিয়ায় ফিটকারী, রঙ, সোডা, হাইড্রোজ দিয়ে তৈরি হচ্ছে গুড় | ব্যবস্থাপকের কারাদণ্ড

কুষ্টিয়ার খোকসায় আখেঁর গুড়ের সঙ্গে মানব দেহের জন্য ক্ষতিকারক ফিটকারী, রঙ, সোডা, হাইড্রোজ ও...

কুষ্টিয়ায় আর্জেন্টিনা-ব্রাজিলের পতাকা প্রতিযোগিতা

কাতার বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার বাকি মাত্র একদিন। বিশ্বকাপ আসলেই বাংলাদেশে শুরু হয়ে যায় ব্রাজিল...

কুষ্টিয়ার খোকসায় মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে আগুন দিলো দুর্বৃত্তরা

কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলায় এক মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে আগুন লাগিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার (০৭ জুলাই)...